Categories
রেগুলার পোস্ট
ঘটনা ১: কামাল সাহেব রোজ সকালে বাজারে দুধ বিক্রি করেন। একদিন দেখলাম দুধের সাথে পানি মিশাচ্ছেন৷ আমি বললাম একিই করছেন চাচা? দুধের সাথে পানি মিশিয়ে মানুষকে ঠকানো ভালো কাজ না। চাচা উত্তর দিলেন, “তয় কি হয়ছে? ওজনে তো কম দেই না”।
ঘটনা ২: করিম চাচা বাজারে ফল বিক্রি করেন। একদিন চাচার সাথে কথোপকথন হচ্ছিল তখন দেখলাম তিনি ওজনে কিছু কম দিয়ে তা ১ কেজি বলে বিক্রি করে দিচ্ছেন। বিক্রি করার পর আমি চাচাকে বললাম, আপনি তো ওজনে কম দিলেন। চাচা উত্তর দিলেন, ” মাইনসে যে সাথে পচা জিনিস দিয়ে ১ কেজি দেহাইয়া দেয়, আমি তো তা করি নাই”?
উপরের দুইটি ঘটনা কাল্পনিক হলেও, এমন ঘটনা কিন্তু ঘটে আমাদের চারপাশেই। দুনিয়ার লোভে মত্ত হয়ে আমরা এমন ভুল করে বসি। কিন্তু লেনদেন ও ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ওজন ও পরিমাণে কমবেশি করা জঘন্যতম গুনাহ।
পবিত্র কোরআনে মহান রাব্বুল আলামীন বলেন,”পরিমাপে ও ওজনে কম দিও না”
কাউকে ঠকানোর মাধ্যমে উপার্জন করা মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকেও অপরাধ। সীমাহীন লোভ ও দুষ্ট অভ্যাসের কারণেই অবৈধ পন্থায় উপার্জনের পেছনে ছোটে মানুষ। এতে বরকত নেই, বরং বিভিন্ন রকমের ক্ষতি রয়েছে।
পূর্বে এমন ঘটনায় মহান রাব্বুল আলামীন কঠোর শাস্তি দিয়েছিলেন। আমরা কি সেখান থেকে শিক্ষা লাভ করবো না?
পূর্বে মাদইয়ান সম্প্রদায় ছিলো এবং ওই সম্প্রদায় পার্থিব লোভ-লালসায় মত্ত হয়ে পারস্পরিক লেনদেনের সময় ওজনে কমবেশি করে মানুষের হক আত্মসাৎ করত।
অতঃপর হজরত শোয়াইব (আ.) আসেন এবং তাদের বিভিন্নভাবে বুঝানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু তারা তো কথা শুনেনই নি বরং বিনিময়ে উপহাস-পরিহাসই করেছেন। অবশেষে তারা যখন সীমা লঙ্ঘন করে ফেলল তখন আল্লাহ তায়ালার আজাব এসে গেল।
কিভাবে আসলো সেই আজাব? প্রথমে মহান রাব্বুল আলামীন প্রচন্ড গরম দিয়ে গোটা জাতিকে কষ্ট দিলো। অতঃপর কাছের একটি ময়দানের ওপর গাঢ় মেঘমালা জমলো। ময়দানে ছায়া পড়ল শীতল বাতাস বইতে লাগল।
এলাকার সবাই সেই ময়দানে জমায়েত হলো। তারা ভাবলো তাদের উপর এই মেঘ থেকে বৃষ্টি নাজিল হবে। যখন সবাই সেখানে সমবেত হলো, তখন মেঘমালা থেকে অগ্নিবৃষ্টি বর্ষিত হতে শুরু হলো। আর, নিচের দিকে শুরু হলো ভূমিকম্প। ফলে সবাই সেখানে নাসতানাবুদ ও ধ্বংস হয়ে গেল।
কোরআনে কারিমে বলা হয়েছে, ‘তাদের ভীষণ ভূমিকম্প পাকড়াও করল। ফলে তারা নিজেদের গৃহের অভ্যমত্মরে উপুড় হয়ে পড়ে রইল।’
[ সূরা আরাফ ]
অপরদিকে বিকট গর্জনও তাদের পাকড়াও করল। ফলে তারা সবাই ভস্মরূপে পরিণত হলো।
আমরাও কি চাই এমন কঠিন শাস্তি আমাদের উপর নাযিল হোক? নিশ্চই না।
কিন্তু বর্তমানে আমাদের সমাজে এমন লোকের অভাব নেই। এ ঘটনায় তাদের জন্য রয়েছে সর্তকবাণী। সুতরাং যারা ওজনে কম দেন তাদের এ ঘটনা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত।
আসুন, আমরা পবিত্র কোরআন ও হাদিসে যেই কাজকে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে তা এড়িয়ে চলি ও যা করতে বলা হয়েছে তা মেনে চলি। তাহলেই আমাদের ব্যবসা ও জীবন আল্লাহর রহমতে ও বরকতে পরিপূর্ণ থাকবে, ইনশাআল্লাহ।

Leave a Reply

Calendar

মে 2022
সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

বিভাগসমূহ

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ