Categories
প্রশ্ন-উত্তর
প্রশ্ন: PH মিটার /Refractometer মধু পরিক্ষায় কতটা কার্যকরী?
উত্তর: অনেকেই মনে করে থাকেন PH মিটার বা রিফ্র্যাক্টোমিটার খাঁটি মধু প্রমাণে সহায়তা করে। কিন্তু এই তথ্য আসলে কতটা সঠিক? অনেকেই PH মিটার থেকে পাওয়া তথ্যের উপর ভিত্তি করে নিজের কিংবা ব্যবসার জন্যে মধু কিনে থাকেন।
কিন্তু PH মিটার কি আসলেই খাঁটি কিংবা ভেজাল মধু শনাক্ত করতে পারে? সেটা আমরা বোঝবো কি করে? PH মিটারের বিশ্বাসযোগ্যতা জানার আগে আমাদের জানতে হবে এই মিটারের আসলে কাজ কি? কি উদ্দেশ্যেই বা এই মিটার তৈরী করা হয়েছে?
শুরুতেই জেনে নেওয়া যাক এই মিটার তৈরী হয়েছে কবে এবং এর আবিষ্কারকই বা কে? ১৮৬৯ সালে, জার্মান পদার্থবিদ আর্নস্ট অ্যাবে প্রথম রিফ্র্যাক্টোমিটার বা PH মিটার তৈরি করেন। অতঃপর ১৮৭৪ সালে, এই পদার্থবিদ উনার একটি গ্রন্থে প্রতিসরাঙ্ক সূচক পরিমাপের জন্য এটির বিশদ তত্ত্ব এবং বিবরণ প্রদান করেন।
কি কাজ এই PH মিটারের?
১. PH মিটার মূলত একটি অপটিক্যাল নির্ভুল যন্ত্র যা প্রতিসরণ সূচকের মাধ্যমে একটি তরলের ঘনত্ব নির্ধারণ করে।
২. এই PH মিটার মধু, জ্যাম, সিরাপ ইত্যাদির তরলের পরিমাণ পরিমাপের জন্য বিশেষভাবে উপযুক্ত।
৩. কয়েক ফোঁটা তরল এই রিফ্র্যাক্টোমিটারের প্রিজমে ফেলে দিয়ে এর ঘনত্ব পরিমাপ করা হয়।
সাধারণত মৌমাছি পালনকারীরা মধুতে কতটা জল বা আর্দ্রতা আছে তা পরিমাপ করতে এই রিফ্র্যাক্টোমিটার ব্যবহার করেন।
এখন প্রশ্ন থেকে যায়, তরলের ঘনত্ব পরিমাপের মধ্য দিয়ে কি করে খাটিঁ মধুর প্রমাণ পাওয়া যায়!
ঘনত্ব কম কিংবা বেশি হওয়ার সাথে মধু খাঁটি হওয়া যে নির্ভর করে না সেটা আমরা গত প্রশ্ন উত্তর পর্বেই জেনেছি। পড়ুনঃ https://maagbd.com/archives/10486
সাধারণত মধুতে অনেকগুলো উপাদান থাকে। এরমধ্যে মধুর প্রধান উপকরণ হলো (ন্যাচারাল) সুগার, যার ভেতরে লেভিউলোজ ৩৯ শতাংশ, ডেক্সট্রোজ ৩১ শতাংশ, ম্যালটোজ ৯ শতাংশ, গ্লুকোজ ১ শতাংশ এবং সামান্য পরিমাণে থাকে সুক্রোজ।
আর মধুতে আর্দ্রতার পরিমাণ থাকে ১৭% থেকে ২৬%। মধু ভেদে কিংবা ভাঙ্গার উপর নির্ভর করে এই পরিমাণটা কম বেশি হয়। আর এই রিফ্যাক্ট্রোমিটার শুধুমাত্র জল বা আর্দ্রতার পরিমাণ কেমন তা নির্ণয় করে, বাকী উপাদানগুলো না। তাহলে সেই ক্ষেত্রে খাঁটির মধুর প্রমাণ আমরা এই রিফ্যাক্ট্রোমিটার দিয়ে কখনোই পাই না।
যেটা পাওয়া যায় তাহলো মধুর ঘনত্ব কেমন সেটা স্পেসেফিক স্যংখায় জানা। কারণ যারা অল্প কিছুদিনও মধু নিয়ে কাজ করছেন তারাও মধু দেখলেই সহজেই অনুমান করতে পারেন এতে কতটুকু আর্দ্রতা/কত গ্রেডের মধু। বাস্তবিকভাবে সাধারণ ব্যবসায় তেমন কোন বড় ফিচার যুক্ত করবে না এটা। তবে হা যারা মধু নিয়ে গবেষণা টাইপ অ্যাডভান্স কাজ করছেন তাদের জন্য এটা জরুরী।
পরিশেষে, মধুর পিএইচ মান নির্ণয় করে সেটা খাঁটি কিংবা ভেজাল তা নির্ণয় করা যায় না। এর বাইরেও কোনো মধু কেনার পর যদি মধু সম্পর্কে আরও ভালোভাবে জানতে চান তাহলে স্যাম্পল পাঠাতে পারেন ম্যাগ মধুর কর্পোরেট অফিসের ঠিকানায়। আমরা আমাদের দীর্ঘদিন কাজের অভিজ্ঞতা থেকে আপনাকে একটা সমাধান দিবো, ইনশাআল্লাহ।
উত্তর প্রদানেঃ-
Gazi Sakib Ahmad
Founder at BHAB – Bee and Honey Association Bangladesh

Leave a Reply

Calendar

মে 2022
সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

বিভাগসমূহ

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ